কাকড়া অক্টোপাস খাওয়া কি জায়েজ?

For English speakers
below given in English,

আসসালামু আলাইকুম,

কাকড়া অক্টোপাস খাওয়া কি জায়েজ?

মুফতী ওলি উল্লাহ

জবাব

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

শরীয়তের বিধান হলো মাছ ছাড়া অন্য কোন জলজ প্রাণী খাওয়া জায়েয নাই।

সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত  অক্টোপাস, কাকড়া যেহেতু মাছ নয়, তাই এগুলো খাওয়াও জায়েয নাই। (ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৩/১১৪ আল বাহরুর রায়েক ৮/৪৮৫ হাশিয়ায়ে তাহতাবী ৪/৩৬০ ইমদাদুল ফাতাওয়া ৪/১১৮)

শামুক ঝিনুক ইত্যাদিরও একই হুকুম।

এগুলো খাওয়া হলো নয়।

 এগুলো হারাম হওয়ার অন্যতম একটি কারন হলো   এগুলো কোরআনে বর্ণিত ‘খাবায়েস’ (নোংরাবস্তু) এর অন্তর্ভুক্ত’

وَيُحَرِّمُ عَلَيهِمُ الخَبائِثَ

‘খাবায়েস নিষিদ্ধ‘।

(আলআরাফ ১৫৭)।

‘খাবায়েস’ বলা হয়,

 كل ما يستخبثه الطبع

অর্থাৎ, যা মানুষ স্বভাবত ঘৃণা করে।

 (দ্রঃ তাফসীরে কাবীর, আযওয়াউল বায়ান, আললুবাব, আলহাবী সংশ্লিষ্ট আয়াত)।

আর মাছ ছাড়া অন্যান্য জলজ প্রাণীকে মানুষ স্বভাবতই ঘৃণা করে। সুতরাং সেগুলোও নিষিদ্ধ।

★ এ ধরণের জলজ প্রাণী রাসূলুল্লাহ ﷺ ও সাহাবায়ে কেরাম খেয়েছেন বলে প্রমাণ পাওয়া যায় না।

অধিকন্তু হাদীসে এসেছে,

 انَّ طَبِيبًا سَأَلَ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنْ ضِفْدَعٍ يَجْعَلُهَا فِي دَوَاءٍ فَنَهَاهُ النَّبِيُّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنْ قَتْلِهَا

অর্থাৎ, আব্দুর রহমান বিন উসমান রাযি. থেকে বর্ণিত আছে যে, রসূলুল্লাহ ﷺ জনৈক চিকিৎসককে ব্যাঙ মেরে ওষুধ বানাতে নিষেধ করেছিলেন। (আবু দাউদ ৩৮৭১)। অথচ ব্যাঙ জলজ প্রাণী।

★ আবদুল্লাহ ইবনে উমার রাযি. থেকে বর্ণিত হাদীসে এসেছে,

أحلت لنا ميتتان ودمان فأما الميتتان فالحوت والجراد وأما الدمان فالكبد والطحال

রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, তোমাদের জন্য দু’ প্রকারের মৃত জীব ও দু’ ধরনের রক্ত হালাল করা হয়েছে। মৃত জীব দু’টি হলো মাছ ও টিড্ডি এবং দু’ প্রকারের রক্ত হলো কলিজা ও প্লীহা। (ইবনে মাজাহ ৩৩১৫, আহমাদ ৫৬৯০, দারাকুতনী ৪৬৮৭, শারহুস সুন্নাহ ২৮০৩। সনদ সহিহ।)

Assalamu Alaikum,

Is it permissible to eat cucumber octopus?

Mufti Oli Ullah

Reply

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

The ruling of shariah is that there is no need to eat any aquatic animal other than fish.

So since the octopus mentioned in the question, the crab is not a fish, it is not permissible to eat them. (Fataawa Hindiya 3/114 Al Bahroor Raik 8/485 Hashiyate Tahtabi 4/360 Imdadul Fatawa 4/118)

The same is the ruling on snail oysters, etc.

They were not eaten.

One of the reasons why they are forbidden is that they belong to the ‘Khabayes’ (dirty objects) described in the Qur’an.

وَيُحَرِّمُ عَلَيهِمُ الخَبائِثَ

‘Khabayas is forbidden’.

(Al-Araf 157).

It is called ‘Khabayas’,

كل ما يستخبثه الطبع

That is, what people hate by nature.

(Dr. Tafseer Kabir, Aywaul Bayan, Allubab, Alhabi related verses).

And people naturally hate aquatic animals other than fish. So they are also forbidden.

★ there is no evidence that the Messenger of Allaah (peace and blessings of Allaah be upon him) ate keram in صلى الله عليه وسلم and Sahaba.

Moreover, the Hadiths have come,

انَّ طَبِيبًا سَأَلَ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنْ ضِفْدَعٍ يَجْعَلُهَا فِي دَوَاءٍ فَنَهَاهُ النَّبِيُّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنْ قَتْلِهَا

That is, Abdul Rahman bin Usman Razi. It is narrated from the fact that The Messenger of صلى الله عليه وسلم forbade a doctor to make medicines by froging. (Abu Dawood 3871). But frogs are aquatic animals.

★ Abdullah ibn Umar Razi. From the hadiths mentioned,

أحلت لنا ميتتان ودمان فأما الميتتان فالحوت والجراد وأما الدمان فالكبد والطحال

The Messenger of Allaah (peace and blessings of Allaah be upon him) said صلى الله عليه وسلم that two types of dead organisms and two types of blood have been made halal for you. The two dead organisms are fish and tiddi and two types of blood are liver and spleen. (Ibn Majah 3315, Ahmad 5690, Darakutni 4687, Sharhus Sunnah 2803. Certificate saheeh. )

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *