১০০ টাকার হাসি অথবা খুশি কেনার গল্প…❤

❤…১০০ টাকার হাসি অথবা খুশি কেনার গল্প…❤

সুখ কিংবা হাসি! আচ্ছা এই হাসি! কিংবা সুখের দাম কত! ১০০ টাকায় কতটুকু সুখ অথবা হাসি কেনা যায়! কেউ কি জানেন..! কখনো ভেবে দেখেছেন..!

এইতো সেদিন সন্ধায় একজায়গায় যাচ্ছি, তো একটা রাস্তার মোড়ে সিগন্যালে জ্যামে বাইক নিয়ে দাড়িয়ে আছি আমার বা পাশে একজন রিকশাচালক ফোনে তার স্ত্রীকে চিল্লায় চিল্লায় প্রচন্ড বকা বকি করছেন,
আশেপাশের মানুষও প্রচন্ড বিরক্ত তার উপর, কেউ কেউ যেনো প্রস্তুতি নিচ্ছে তাকে কিছু একটা বলার, এমনিতেই গরম তার উপরে জ্যামের মধ্যে বসে থাকলে এমনিতেই মেজাজ থাকে খারাপ তার উপর পাশে কেউ চিল্লায় চিল্লায় গালাগালি করলে কেমনটা লাগে আপনিই বলেন? আমিও ভাবলাম তাকে কিছু বলা দরকার কিন্তু কি বলবো! কি বলা উচিত কিংবা দরকার! ভাবছি… এমন সময় একটা অল্পবয়সী
মেয়ে এসে বললো! ভাইয়া ফুলটা নিবেন! নেন না! এটাই শেষ ফুল, এটা বিক্রি হলেই বাড়ীত যামু, সকালে আইছি, মেলা খিদা লাগছে, বাড়ীত যাইয়াই আগে মেলাডি ভাত খামু,

আমি তার চোখ আর মলিন মুখটার দিকে তাকিয়ে আছি, আমার ফুল দেয়ার মতন কেউ নেই, তবুও মন চাচ্ছিলো নিয়ে নেই অন্তত বেচারী একটু তাড়াতাড়ি বাসায় তো যেতে পারবে! ভালোমন্দ না হোক দুমুঠো ডাল ভাত তো খেতে পারবে! এই ভেবেই জিজ্ঞেস করলাম দাম কত! সারাদিন বেচছি ৮০ টেকা কইরা আপনি ৬০ টেকা দেন, আমি ১০০ টাকার একটা নোট দিলাম সে ৪০ টাকা ফেরত দিলো আমি বললাম থাক লাগবেনা ওটা তুমি রাখো, তার চোখে মুখে রাজ্য বিজয়ের হাসি, হাসতে হাসতেই সে চলে গেলো,

এখন আমি ভাবছি এই ফুল আমি কি করবো! বাসায় নিলে নির্ঘাত কপালে মাইর আছে😑 দিছে কেডা!কেন দিছে! হে তোর কি হয়! হাজারটা প্রশ্ন, হঠাৎ মনে হলো একটা কাজ করি, রিকশাওয়ালা মামারে ডাক দিলাম মামা! মামা উওর দিলো জ্বী মামা! বললাম এটা ধরো, সে ধরলো, বললাম এটা বাসায় গিয়ে তোমার বউরে দিবা, মামায় এবার আমার দিকে হা করে তাকায় আছে, আবার বললাম বুঝোনি! ফুলটা বাসায় গিয়ে তোমার বউকে দিবা বুঝছো! নাকি আবার বলবো! সে উওর দিলো না বুঝছি, এর ভেতরেই সিগন্যাল ছেড়ে দিলো আমি বাইক স্টার্ট দিয়ে টান দিলাম এমন সময় আমার ফোন আসলো, সামনে সার্জেন ফোন হাতে দেখলে নির্ঘাত মামলা, আমি সিগন্যাল পার হয়ে দাড়ালাম, কল কেটে গেছে এতক্ষণে কল ব্যাক করতে যাবো এমন সময় কানে আসলো কেউ বলছে! মামা যাবা! প্রতিউওর হলো, না মামা, বাসায় যামু, কন্ঠটা পরিচিত লাগলো তাকালাম আরে এতো সেই রিকশাওয়ালা মামাটা তার মুখটা হাসিতে ভরপুর আমি আড়ালে দাড়িয়ে তার হাসি মুখটা বারবার দেখছিলাম যতক্ষণ না! সে আমার দৃষ্টিগোচর হয়…

একটা সময় সে আমার দৃষ্টি সীমার বাহিরে চলে গেলো আর আমার চোখে তখন ভাসছে তার সহধর্মিণীর কাল্পনিক চেহারাটা আচ্ছা তার সহধর্মিণী ফুলটা পেয়ে খুশি হয়েছিলো তো! কতটুকু খুশি হয়েছিলো! খুশিটা কি হাসি হয়ে প্রকাশিত হচ্ছিলো নাকি কান্না হয়ে! মনে হাজারটা প্রশ্ন নিয়ে আমি ছুটে চললাম ব্যস্ত নগরীর বুক চিড়ে…🙂🙂

১০০ টাকায় তিনজন মানুষ হাসলো, আর তিনজন মানুষের হাসির কথা ভেবে আমি অমানুষটাও কখন জানি নিজের অজান্তেই হেসে ফেললাম…😊😊😊

১০০ টাকার কোনোই দাম নেই আমার কাছে
কিন্তু রাজ্য বিজয়ের হাসি! হাসি ভরপুর মুখ!
আর অদেখা একটা মলিন মুখের হাস্যজ্জল
চেহারার অনেক বেশি দাম আমার কাছে…🙃

_______ মুহাম্মাদ আনাস ফারহান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *